কোষ পর্দা কাকে বলে? | কোষ পর্দার গঠন ও কাজ |

কোষ পর্দা ( Plasma membrane) কাকে বলে?

সমস্ত সজীব কোশের প্রােটোপ্লাজমের বাইরে যে পাতলা, স্থিতিস্থাপক, প্রভেদক ভেদ্য, লাইপােপ্রােটিন নির্মিত সজীব আবরণ বর্তমান, তাকে কোষ পর্দা বলে।

কোষপর্দার গঠন সংক্ষেপে বর্ণনা করো

কোষপর্দার গঠন :

(i) বিজ্ঞানী ডাভসন ও ড্যানিয়েলি (1935) -এর মতে কোশপর্দার গঠন প্রােটিন – লিপিড – প্রােটিন নির্মিত ত্রিস্তর বিশিষ্ট।

(ii) এই স্যান্ডউইচ মডেল অনুযায়ী কোষ পর্দা গড়ে প্রায় 75 অ্যামস্ট্রম পুরু, যার মাঝের লিপিড স্তরটি 35 অ্যামস্ট্রম এবং এর দুদিকে প্রতিটি প্রােটিন স্তরের পুরুত্ব প্রায় 20-25 অ্যামস্ট্রম।

(iii) পরবর্তীকালে বিজ্ঞানী রবার্টসন (1959) কোশপর্দার এইরূপ গঠন সমস্ত সজীব কোশ ও কোশীয় অঙ্গাণুর ক্ষেত্রে পর্যবেক্ষণ করেন বলে একে ‘একক পর্দা রূপে’ অভিহিত করেন।

(iv) বিজ্ঞানী সিঙ্গার ও নিকলসন (1972) কোষপর্দার গঠনকে ‘ফ্লুইড মােজেইক মডেল ’ রূপে বর্ণনা করেন । তাঁদের মতে কোশপর্দার মাঝখানে থাকে দ্বিস্তরীয় ফসফোলিপিড স্তর এবং লিপিড স্তরের মধ্যে মােজেইক দানার মতাে অন্তঃস্থ প্রােটিন ও বহিস্থ প্রােটিনগুলি প্রােথিত থাকে। কোষপর্দার এই গঠনটি বর্তমানে সর্বজনগৃহীত হয়েছে।

কোষ পর্দার কাজ গুলি কি কি?

i) আকৃতি প্রদান : কোষপর্দা কোষের নির্দিষ্ট আকৃতি প্রদানে সাহায্য করে। বিশেষ করে প্রাণী কোষে।

ii) সুরক্ষা দান : কোশের সজীব প্রােটোপ্লাজমকে বাহ্যিক আঘাত থেকে রক্ষা করে।

iii) পদার্থের বিনিময় : পরিবেশ ও কোশের মধ্যে প্রয়ােজনীয় পদার্থের বিনিময়ে অংশগ্রহণ করে।

iv) ফ্যাগােসাইটোসিস ও পিনােসাইটোসিস : কোষ পর্দা ফ্যাগােসাইটোসিস পদ্ধতিতে বাইরের পরিবেশ থেকে কঠিন পদার্থ ভক্ষণ ও পিনােসাইটোসিস পদ্ধতিতে তরল পদার্থ গ্রহণে অংশ নেয়।

v) ভৌত প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ : ব্যাপন, অভিস্রবণ, সক্রিয় পরিবহণে সাহায্য করে ।

কোষ পর্দা ও কোষ প্রাচীরের মধ্যে পার্থক্য

 

কোষ পর্দা ( Cell Membrane )কোশপ্রাচীর ( Cell Wall )
প্রােক্যারিওটিক কোশ, উদ্ভিদকোশ ও প্রাণীকোশ সবক্ষেত্রে বর্তমান।প্রাণীকোশে অনুপস্থিত। প্রােক্যারিওটিক কোশ ও উদ্ভিদকোশে বর্তমান।
সমস্ত সজীব কোশে প্রােটোপ্লাজমকে বেষ্টন করে থাকে।কোশপর্দাকে বেষ্টন করে থাকে।
প্রােটিন ও লিপিড দ্বারা নির্মিত।সেলুলােজ (উদ্ভিদকোশের কোশপ্রাচীর) ও পেপটাইডােগ্লাইক্যান (ব্যাকটেরিয়ার কোষপ্রাচীর) দ্বারা নির্মিত।
সজীব, পাতলা, স্থিতিস্থাপক পর্দা।দৃঢ়, পুরু, মৃত আবরণ।
প্রভেদক ভেদ্য বা পছন্দমাফিক ভেদ্য আবরণ ।ভেদ্য আবরণ।
বিভিন্ন কোশ অঙ্গাণু গঠনে সাহায্য করে।কোনাে প্রকার কোশ অঙ্গাণু গঠনে সাহায্য করে না কিন্তু উদ্ভিদকোশ বিভাজনের সময় বিশেষ অংশ গঠন করে কোশ বিভাজনে সাহায্য করে ।